মেয়েদের বিয়ের বয়স না বাড়াতে মোদিকে চিঠি

ভারতে মেয়েদের বিয়ের ন্যূনতম বয়স কত হওয়া উচিত, তা পুনর্বিবেচনা করে দেখছে কেন্দ্রীয় সরকার। কয়েকদিন আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানিয়েছেন, শিগগিরি মেয়েদের বিয়ের উপযুক্ত বয়স নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবে সরকার।

হিন্দুস্তান টাইমস এক প্রতিবেদনে জানায়, সরকারের এমন পদক্ষেপের পর মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ থেকে বাড়িয়ে ২১ না করার আরজি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছে ভারতীয় মুসলিম লিগের নারী শাখা।

চিঠিতে মুসলিম লিগের অনুরোধ, এ বিষয়ে যেন হঠাৎ করে কোনো সিদ্ধান্ত না নেয় কেন্দ্র। নারী শাখার সম্পাদক পিকে নুরবানা রশিদ চিঠিতে দাবি করেন, বিয়ের ন্যূনতম বয়স বাড়ানো হলে ভারতে ‘লিভ ইন’ সম্পর্ক কিংবা অবৈধ সম্পর্কের সংখ্যা বাড়বে।

নুরবানা রশিদ আরো দাবি করেন, যেখানে জৈব ও সামাজিক কারণে বহু উন্নয়নশীল দেশ বিয়ের ন্যূনতম বয়স ২১ থেকে কমিয়ে ১৮ করা হচ্ছে, সেখানে ভারতের এই বিষয়ে কোনো হঠকারী সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত হবে না।

চিঠি বলা হয়, ‘সাম্প্রতিক এক রিপোর্ট থেকে জানা গেছে, গ্রামীণ এলাকায় ৩০ শতাংশ মেয়েদের বিয়ে ১৮ বছর হওয়ার আগেই হয়ে যায়। তাহলে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ার কী অর্থ যেখানে বর্তমান আইনই সঠিকভাবে কার্যকর করা যায় না?’

কাজেই বিয়ের ন্যূনতম বয়স বাড়ানোর আগে এ বিষয়ে যথাযথ আলোচনার প্রয়োজন রয়েছে বলে চিঠিতে দাবি জানান নুরবানা।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় সরকার জয়া জেটলির নেতৃত্বে একটি ১০ সদস্যের দল গঠন করেছে। ওই দল মেয়েদের বিয়ের ন্যূনতম বয়স বাড়ানোর বিষয়টি বিবেচনা করে দেখার পরে সম্প্রতি পরামর্শ দিয়েছে ১৮ থেকে বাড়িয়ে তা ২১ করা হোক।

 

তথ্যসূত্রঃ NTV

Reply